মাদক নিয়ে দ্বন্দ্বেই ঘাসিটুলায় কিশোর সোহাগ খুন

0
89

সিলেটে কিশোর সোহাগ মিয়া খুনের ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে ঘাতক শাকিল আহমদ (২০)। বুধবার বিকেলে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হরিদাস কুমারের আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেয় সে। জবানবন্দিতে সে জানিয়েছে, মাদকের টাকা ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে চারজন মিলে সোহাগকে খুন করা হয়। শাকিল নগরীর ঘাসিটুলার মঈন উদ্দিনের ছেলে।

কোতোয়ালী থানার ওসি গৌছুল হোসেন জানান, বুধবার দুপুরে নগরীর ঘাসিটুলা এলাকা থেকে শাকিল আহমদকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে আদালতে হাজির করা হলে সে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

শাকিলের জবানবন্দির বরাত দিয়ে ওসি গৌছুল জানান, শাকিল ও সোহাগ বন্ধু ছিল। তারা একইসাথে মাদক সেবন ও মাদক বিক্রি করতো। মাদক বিক্রির টাকার ভাগ বাটেয়ারা নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে শাকিলসহ চারজন মিলে গত ১৩ এপ্রিল দিবাগত রাতে খুন করে সোহাগকে। পরে লাশ বস্তাবন্দী করে ঘাসিটুলাস্থ এলজিইডি কার্যালয়ের সীমানাপ্রাচীরের পাশে ফেলে দেয়া হয়।

ওসি আরো জানান, ঘটনার সাথে জড়িত অন্যান্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ এপ্রিল নিখোঁজ হয় সিলেট নগরীর ঘাসিটুলা এলাকার ফুলবানু বেগমের ছেলে সোহাগ মিয়া। ঘটনার দুই দিন পর সোহাগের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সোহাগের গলা, হাত ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাত পাওয়া যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here